ই পর্চা

( www.land.gov.bd) কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখবেন-www.land.gov.bd আর এস খতিয়ান

( www.land.gov.bd) কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখবেন-www.land.gov.bd আর এস খতিয়ান :জমি মানুষের নিজস্ব সব থেকে বড় সম্পদ। যেখানে খতিয়ান নং খুব গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ খতিয়ান সম্পর্কে তেমন বেশি জ্ঞান নেই। যার ফলে নিজের জমি সম্পর্কে তেমন ধারনা নেই। তাই আপনি ঘরে বসে চেষ্টা করলে অনেক কিছু তথ্য জানতে পারবেন। তার জন্য অবশ্যই বাংলাদেশ সরকারের ভূমি অফিসের ওয়েবসাইটে গিয়ে তথ্যগুলো জানতে হবে। এই ওয়েবসাইটে গিয়ে আপনার সকল জমির খতিয়ান নং খুব সহজে দেখতে পারবেন।

জমির খতিয়ান সংক্রান্ত জটিল কাজগুলো খুব সহজে করতে পারেন। এর জন্য অবশ্যই ভূমি অফিসে যেতে হবেনা বা ঘন্টার পর ঘন্টা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হবে না। খুব সিম্পলি ভূমি অফিস অফিশিয়াল ওয়েবসাইট থেকে আর এস খতিয়ান, বিএস খতিয়ান, সিএস খতিয়ান এবং এস এস খতিয়ান গুলো বের করতে পারবেন। আমরা আজকে আপনাদের সাথে আলোচনা করব কিভাবে খুব সহজে খতিয়ান বের করতে ও দেখতে পারবেন ( www.land.gov.bd) কিভাবে অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখবেন-www.land.gov.bd আর এস খতিয়ান।

ভূমি অফিসে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট

ভূমি অফিসে জমি সংক্রান্ত সকল বিষয়ের তথ্য সংগ্রহ করা আছে। যেখানে ভিজিট করলে খুব সহজে আপনার প্রয়োজন মত সকল তথ্য গুলো পাওয়া যাবে। এর জন্য সবার প্রথম ভূমি অফিসের অফিসিয়াল ওয়েবসাইট জানতে হবে। তাই সবার সুবিধার কথা ভেবে আজকে আমরা ভূমি অফিসে অফিশিয়াল ওয়েবসাইট প্রদান করলাম। যেখানে ভিজিট করার পর জমির খতিয়ান নং দেখার অপশন রয়েছে।

জমির খতিয়ান নাম্বার দেখার লিংক-www.land.gov.bd

আপনি চাইলে জমির খতিয়ান নম্বর গুলো ডাউনলোড করতে পারেন। এছাড়াও আর এস ও সি এস খতিয়ান নং অবশ্যই দেখে নেওয়া যাবে।

জমির খতিয়ান দেখার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

জমির খতিয়ান নাম্বার দেখার জন্য অবশ্যই হাতের কাছে কিছু নির্দিষ্ট কাগজ সংগ্রহ করে রাখতে হবে। যেগুলো ছাড়া জমির খতিয়ান নাম্বার দেখা অসম্ভব। যেমন- যে জমির খতিয়ান নাম্বার দেখবেন তার মালিকের নাম, দাগ নাম্বার, গ্রাম, মৌজা, উপজেলা জেলা এবং বিভাগ ইত্যাদি তথ্য গুলো লাগবে। আর এস খতিয়ান থেকে জমির মালিকের নাম শনাক্ত করতে পারবে।

  • জমির খতিয়ান সংক্রান্ত তথ্য গুলো হল :
  1. মালিকের নাম
  2. মালিকের পিতার নাম
  3. খতিয়ান নাম্বার
  4. দাগ নাম্বার
  5. পূর্ণাঙ্গ ঠিকানা

আর এস খতিয়ান দেখার নিয়ম :

  • প্রথমে ভূমি অফিসের অফিশিয়াল ওয়েবসাইট প্রবেশ করতে হবে
  • এরপর পাশে একটি অপশন আসবে যেখানে বিভাগ সিলেক্ট করতে হবে।
  • এরপর জেলা শহরের ঠিকানা নির্বাচন করতে হবে।
  • তারপর ওই জমিটি কোন উপজেলায় অপূর্ব সৃষ্টি অবশিষ্ট অবস্থিত সেখানকার উপজেলা সিলেক্ট করতে হবে।
  • পরিশেষে মৌজা স্থান নির্ধারণ করতে হবে।
  • সাবমিট বাটনে ক্লিক করলে সম্পূর্ণ তথ্য দেখতে পারবেন।

এভাবেই খুব সহজে আপনি আপনার এলাকার যেকোনো জমির খতিয়ান নং এবং দাগ নং দেখতে পারবেন। যার জন্য কোন অফিসে যেতে হবে না।

অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখা ও তোলার উপায় :

এখন আপনাদের সাথে যে বিষয়গুলো নিয়ে আলোচনা করব সেগুলো হলো। কিভাবে অনলাইন থেকে জমির খতিয়ান পাওয়া যায় এবং খুব সহজে জমির খতিয়ান উঠানোর সহজ পদ্ধতি। বিস্তারিত তথ্য প্রদান করা হল।

জমির খতিয়ান পাওয়ার উপায় :

জমির খতিয়ান পাওয়ার উপায় সম্পর্কে অলরেডি আপনাদের অনেক তথ্য দিয়ে সহযোগিতা করছি। সেই তথ্যগুলো যদি অনলাইনে এপ্লাই করেন তাহলে জমি সংক্রান্ত সকল বিষয়ে তথ্য দেখতে পারবেন। এছাড়াও সরকারের ভূমি সংক্রান্ত ওয়েবসাইট থেকে ঘুরে আসলে সকল তথ্য পাওয়া যাবে। এখানে আর এস খতিয়ান নং দেওয়া আছে। আপনার সম্পূর্ণ তথ্যগুলো সেখানে সাবমিট করবেন এরপর ক্লিক করলে সমস্ত তথ্য হাজির হয়ে যাবে।

খতিয়ান উঠানোর পদ্ধতি :

জমির খতিয়ান উঠাতে চাইলে অবশ্যই সশরীরে ভূমি অফিসে যেতে হবে। তারপর সেখান থেকে খতিয়ান নাম্বার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র বের করতে হবে। তারপর অবশ্যই প্রিন্ট আউট করে তথ্যগুলো নিজের কাছে রাখতে হবে। এরপর আপনার চাইলে জমির খতিয়ান এর ফটোকপি নিজের কাছে রাখতে হবে।

অনলাইনে খতিয়ান দেখার ধাপসমূহ :

অনলাইন থেকে জমির পর্চা খতিয়ান দেখা যায় তা অনেক লোকে জানে না। আপনারা ঘরে বসে অনলাইন ব্যবহার করে মাত্র 5 মিনিটে খতিয়ানের করতে পারবেন এর জন্য যে সকল বিষয়গুলো জানা দরকার। সে বিষয়গুলো আজকে হাতেনাতে খুঁটিনাটি শিখিয়ে দেয়া হবে।

অনলাইনে জমি যাচাই-বাছাই করার জন্য অবশ্যই কিছু প্রয়োজনীয় ডকুমেন্ট লাগবে.। যেমন আপনার জমির মালিকের নাম। দাগ নম্বর, মৌজা। গ্রাম, উপজেলা, জেলা ও বিভাগ ইত্যাদি তথ্য। তথ্য যদি সঠিকভাবে প্রদান করতে পারেন। তাহলে আপনার জমির খতিয়ান অনলাইনে দেখা সম্ভব।

অনলাইনে জমির খতিয়ান যাচাই-বাছাই প্রক্রিয়া :

অনলাইনে জমির খতিয়ান দেখতে হলে কিছু প্রক্রিয়া অবলম্বন করতে হবে। প্রথমে আপনার জেলা শহর সিলেক্ট করতে হবে। তারপর পর্যায়ক্রমে উপজেলা সর্বশেষ মৌজার স্থান সঠিকভাবে নির্ধারণ করে। আপনার তথ্যগুলো সুন্দর করে সাবমিট করে দিলে সকল তথ্য কম্পিউটার মনিটরের স্ক্রিনে ভেসে উঠবে। তখন আপনার খতিয়ান সংক্রান্ত সকল তথ্য গুলো পিন করে বের করতে পারবেন।

জমির খতিয়ান তোলার নিয়ম :

খতিয়ান তুলতে হলে অবশ্যই আপনাকে ভূমি অফিসের সাথে যোগাযোগ করতে হবে। তারপর খতিন অফিসে গিয়ে আপনার প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো দেখাতে হবে। নির্দিষ্ট কাগজপত্র নিয়ে যে আবেদন ফরম পূরণ করলে। কয়েকদিনের মধ্যে আপনার কাংখিত জমির খতিয়ান হাতে পাবেন। এরপর অতিরিক্ত কাগজ হিসেবে ফটোকপি করে নিজের কাছে রেখে দিতে পারেন।

আশা করছি আমরা সকল তথ্য দিয়ে আপনাদের কে সহযোগিতা করতে পেরেছি। এইখানে অসংখ্য তথ্য দেওয়া আছে যেগুলো পড়ে আপনারা উপকৃত হয়েছেন। আপডেট তথ্য পাওয়ার জন্য নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইট ভিজিট করুন এবং আমাদের লেখাগুলো খুব মনোযোগ সহকারে পড়বেন ধন্যবাদ।

Rahat Ali

I'm Rahat Ali here with you. I write about Informative content. If you are looking for Education, Travel, Telecom, official contact info of any Company, Organization, or Person, let's read my content on this website.

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button